এই দিন

বৃহস্পতিবার   ০৩ ডিসেম্বর ২০২০   অগ্রাহায়ণ ১৮ ১৪২৭   ১৭ রবিউস সানি ১৪৪২

তরুণ কণ্ঠ|Torunkantho
২০৩

শরীয়তপুরে গৃহকর্মীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ

শরীয়তপুর প্রতিনিধি।

প্রকাশিত: ১৫ নভেম্বর ২০২০  

 

 

 

গত ৪নভেম্বর ২০২০ সকাল ৯ ঘটিকার সময় ওই গৃহকর্মী তার প্রতিবেশী তাইজুদ্দিন এর বাড়িতে গৃহের কাজ করতে গেলে ওই বাড়ির মালিক তাইজুদ্দিন মোল্লা (৪৩)ওই গৃহকর্মীকে জোরপূর্বক মুখে গামছা বেধে ধর্ষণ করে। ধর্ষণের শিকার ওই গৃহকর্মী প্রায় ছয় মাস যাবত পেটের অভাবে তাইজুদ্দিন মোল্লার বাড়িতে তিন হাজার টাকা বেতনে গৃহের কাজ করেন। গত ৪ নভেম্বর সকালে ভিকটিম প্রতিদিনের মত ওই বাড়িতে গৃহের কাজ করতে গেলে তখন ঐ ঘরে কেহ না থাকায় একাকিত্বের সুযোগ নিয়ে অসৎ ও চরিত্রহীন তাইজুদ্দিন মোল্লা জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। ধর্ষণের শিকার মহিলার চিৎকারের শব্দ শুনে আশেপাশের লোকজন আশিয়া ধর্ষক তাইজুদ্দিন মোল্লা কে ধরিয়া ফেলে এবং ঘটনাস্থলে থাকা স্থানীয় লোকজন এই বিষয়টিকে গোসাইরহাট থানায় সংবাদ দিলে তাৎক্ষণিকভাবে থানা কর্তৃপক্ষ ধর্ষক তাইজুদ্দিন মোল্লা কে গ্রেফতার করে। ওই গৃহকর্মী থানায় হাজির হইয়া ধর্ষকের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করিলে থানা কর্তৃপক্ষ ওই মহিলার অভিযোগ গ্রহন না করিয়া উল্টো ধর্ষক তাইজুদ্দিন মোল্লার পক্ষে কাজ করিয়া ফৌজদারী কার্যবিধি ১৫১ ধারা মতে ধর্ষক তাইজুদ্দিন মোল্লাকে কোট আদালতে প্রেরণ করেন, এমনটাই বললেন ওই গৃহকর্মী। ভিকটিম ওই মহিলা নিরুপায় হইয়া বিষয়টি স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ কে জানালে তখন স্থানীয় ব্যক্তিবর্গ ওই গৃহকর্মী মহিলাকে নিয়ে থানার ওসি সাহেবের সাথে আলাপ করলে তখন ওসি সাহেব আশ্বাস দেন এবং স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের উপর দায়িত্ব দেন ধর্ষক তাইজুদ্দিন মোল্লার সাথে গৃহকর্মী মহিলার সাথে আপোষ মীমাংসা করিয়া দেওয়ার। 

ওই ভিকটিম মহিলা গণমাধ্যম এবং মামলার এজাহারে এমনটাই বললেন। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে ওই এলাকার স্থানীয় গণ্যমান্য প্রভাবশালী ব্যক্তিরা ধর্ষক তাইজুদ্দিন মোল্লার কাছ থেকে ঘুষ নিয়ে ওই বিষয়টিকে ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করেন।

ধর্ষণের শিকার ওই মহিলা তাদের অসৎ উদ্দেশ্যের কথা বুঝতে পেরে একপর্যায় নিরুপায় হয়ে তার সঠিক বিচার পাওয়ার আশায় কোট আদালতের শরণাপন্ন হতে বাধ্য হয়েছেন।

গত ৯ নভেম্বর ২০২০ ধর্ষণের শিকার ওই গৃহকর্মী বিজ্ঞ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে,নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০২০ সংশোধন ২০০৩ এর (৯)১ ধারায় মামলা দায়ের করেন।

স্থানীয় সূত্রে আরও জানা গেছে ধর্ষক তাইজুদ্দিন মোল্লা তার বাড়ির কাছাকাছি স্থায়ীভাবে বসবাসরত এক মহিলাকে খারাপ উদ্দেশ্যে প্রস্তাব দিলে তখন ওই মহিলা তাইজুদ্দিনকে ঝাড়ু পেটা করে। গোসাইরহাট থানা অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ সোহেব আলী এর সাথে মুঠোফোনে আলাপকালে তিনি গণমাধ্যমকে বলেন এ বিষয়ে আমি কিছুই জানিনা, এমনকি এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে থানায় কোনো লিখিত অভিযোগ হয়নি। এ ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে অপরাধীর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এই বিভাগের আরো খবর