ব্রেকিং:
ক্রিকেটারদের এ আন্দোলন কারোর বিরুদ্ধে নয়, এ আন্দোলন দাবি আদায়ের : ব্যারিস্টার মোস্তাফিজুর রহমান

বৃহস্পতিবার   ২৪ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ৮ ১৪২৬   ২৪ সফর ১৪৪১

তরুণ কণ্ঠ|Torunkantho
সর্বশেষ:
দুই সাংসদসহ ২২ জনের বিদেশ যাত্রায় নিষেধাজ্ঞা আবরারের রুমমেট মিজান ৫ দিনের রিমান্ডে ফিটনেস নবায়নহীন যানবাহনে তেল নয়: হাইকোর্ট ফেনীর চাঞ্চল্যকর নুসরাত হত্যার রায় কাল ন্যাম সম্মেলন : প্রধানমন্ত্রী বৃহস্পতিবার আজারবাইজান যাচ্ছেন জয়পুরহাটে গৃহবধু ধর্ষণ ও হত্যায় সাতজনের ফাঁসি
৩৯৪

মেয়েরা ছেলেদের কোন জিনিস দেখে লজ্জায় লাল হয়ে যায়!

প্রকাশিত: ১০ জুন ২০১৯  

ছেলেরা যেমন মেয়েদের দেখে ঠিক তেমনি মেয়েরাও ছেলেদের দেখে। প্রথম দেখাতে ছেলেরা মেয়েদের মুখ আর বুক ছাড়া কিছুই দেখে না । কিন্তু মেয়েরা তা করে না, প্রথম দেখার পর তারা কয়েক মিনিটেই একজন পুরুষকে মেপে ফেলার চেষ্টা করে। দর্শনদারির ভিত্তিতেই এই মাপামাপি।

উচ্চতা, ওজন এবং সামগ্রিক শারীরিক আকর্ষণীয়তার পাশাপাশি পুরুষের হাসি, রসবোধ ও আত্মবিশ্বাস লক্ষ করে মহিলারা। প্রথম দেখাতে একজন পুরুষের শরীরের যে জিনিসগুলো দেখে তা হল-শারীরিক আকৃতিঃ মহিলারা প্রথমেই যা কিছু খেয়াল করেন সে তালিকার প্রথমদিকেই আছে উচ্চতা এবং ওজন।

কোনো পুরুষ খুব বেশি লম্বা, মোটা বা খাটো হলে তাঁর এই শারীরিক গঠনের কারণে শুরুতেই তাঁর বিষয়ে একটা সিদ্ধান্তে চলে আসতে পারেন কোনো কোনো মহিলা। ফলে তাঁর অন্য মানবিক গুণাবলি লক্ষ করার বিষয়ে আগ্রহ হারিয়ে ফেলতে পারে। অবশ্য মহিলারা তাঁর নিজের উচ্চতা এবং ওজনের নিরিখেই পুরুষের এই শারীরিক বৈশিষ্ট্যের গ্রহণযোগ্যতা বিচার করেন।

আকর্ষণী ক্ষমতাঃ চেহারার সৌন্দর্য হচ্ছে সেই গুণের নাম যা জন্মসূত্রে পাওয়া। কিন্তু কেবল সুন্দর হলেই তো হবে না। একজন পুরুষ নিজেকে যত্ন করেন, সেটা খেয়াল করে মহিলারা। চুল, নখ থেকে শুরু করে কাপড়চোপড় এবং পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার বিষয়টি খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিবেচনায় রাখে মহিলারা।

মুখের হাসিঃ একনজরে দেখে নিয়ে মেপে ফেলার পর পুরুষের মুখের হাসি দেখার অপেক্ষায় থাকে মেয়েরা। হাসবার ক্ষমতা, বিশেষত দেখা হওয়ার প্রথম কয়েক মিনিটের মধ্যেই পুরুষের হাসি মহিলাদের কাছে একটা স্বাগত বার্তার মতো। অবশ্য হাসবার আগে মাথায় রাখতে হবে নিজের দাঁতের কথাও।

অপরিচ্ছন্ন দাঁত নিয়ে কোনো মহিলার সামনে হাসলে লাভের চেয়ে লোকসানই বেশি হবে। আর দাঁতের অন্য কোনো সমস্যা থাকলেও সেটা সারাতে দন্ত্য চিকিত্সকের কাছে ঘুরে আসাই ভালো।