রোববার   ১৪ এপ্রিল ২০২৪   চৈত্র ৩০ ১৪৩০   ০৫ শাওয়াল ১৪৪৫

তরুণ কণ্ঠ|Torunkantho
১৩৮

কালীগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা সেবার নামে অবহেলা

কালীগঞ্জ (গাজীপুর) প্রতিনিধি  

প্রকাশিত: ১৯ মে ২০২৩  

কালীগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা সেবার নামে অবহেলা, চিকিৎসকের নামে অভিযোগ, তদন্ত কমিটি গঠন

কালীগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা সেবার নামে অবহেলা, চিকিৎসকের নামে অভিযোগ, তদন্ত কমিটি গঠন

গাজীপুরের কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসায় অবহেলা করায় কাজী মোঃ রাকিবুল হাসান নামে এক চিকিৎসকের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, কাজী মোহাম্মদ ওমর ফারুক নামে এক গণমাধ্যম কর্মী সড়ক দূর্ঘটনায় মারাত্নক আহত হয়ে গত ২৯/০৪/২৩ ইং তারিখে কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হন। হাসপাতালের আবাসিক ডাক্তারের ব্যবস্থাপত্র অনুযায়ী সরকারী হাসপাতাল থেকে ৩০/০৪/২৩ তারিখে দুটি এক্স-রে করান। অভিযোগে জানা যায়, আনুমানিক দুপুর ১২ টার দিকে হাসপাতালের জুনিয়র কনসালটেন্ট (অর্থোপেডিক) ডাঃ কাজী মোঃ রাকিবুল হাসান রোগীকে দেখতে যান। ডাক্তার রোগীর সমস্যার কথা জানতে চাইলে রোগী জানান, তার বুকে, হাতে, পিঠেসহ সমস্ত শরিরে ব্যাথা আছে। অন্যের সাহায্য ছাড়া উঠবস করাও অসম্ভব। ডান হাত একেবারের নড়াচড়া করতে পারেনা বলেও ডাঃ কে জানান। তখন তিনি সরকারী হাসপাতাল হতে করা এক্স-রে ফ্লিম দেখে বলেন তেমন কোন সমস্যা নেই, কোথাও ভাঙ্গে নাই, বিশ্রাম নিলে ঠিক হয়ে যাবে। তিনি কোন ব্যবস্থাপত্র না দিয়ে বা না দেখে চলে যান। গত ০১/০৫/২৩ ইং সোমবার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগের ডাক্তার রোগীকে রিলিজ দেন এবং বাড়িতে পাঠিয়ে দেন। কিন্তু শরিরের ব্যাথা না কমায় গত ০৪/০৫/২৩ তারিখ বৃহস্পতিবার সকাল আনুমানিক সাড়ে ৯ টায় ডাঃ কাজী মোঃ রাকিবুল হাসানকে মোবাইলে ফোন করেন এবং তার পরিচয় দেয়। তখন তিনি রোগীর সাথে রুঢ় আচরন করেন এবং বলেন আমার মোবাইল নাম্বার কোথায় পেলেন। শারিরিক অবস্থার আরোও অবনতি হওয়ায় গত ০৭/০৫/২৩ ইং তারিখে পূনরায় সরকারী হাসপাতালে ডাঃ কাজী মোঃ রাকিবুল হাসানের নিকট যায় এবং রোগীর সমস্যার ব্যাপারে জানায়। তখন ডাঃ কাজী মোঃ রাকিবুল হাসান তেমন কিছু জানতে না চেয়ে ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে রেফার্ড করে। এমতাবস্থায় রোগী দিকবেদিক না দেখে অসহায় হয়ে পরে। পরবর্তিতে গত ১২/০৫/২৩ ইং তারিখ শুক্রবার একটি বেসরকারি হাসপাতালে বিশেষজ্ঞ ডাক্তার দেখায়। তিনি তার শারিরিক সমস্যার কথা শুনেন ও সেই সরকারী হাসপাতাল থেকে করা ৩০/০৪/২৩ ইং তারিখের এক্স-রে ফ্লিম দেখে বলেন বুকের ডান পাজরের ৪ নাম্বার হাড়টি ভাঙ্গা। তাই ব্যাথা কমতেছে না বলে বিশেষজ্ঞ ডাক্তার জানান। ভুক্তভোগী ওমর ফারুক প্রতিবেদককে বলেন, এতে বুঝা যায় ডাঃ রাকিবুল হাসান কর্তব্য কাজে অবহেলা করেছে এবং একজন রোগীকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিয়েছে। চিকিৎসার প্রথম দিকে রোগী সুচিকিৎসা পেলে দ্রুত স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে পারতাম। তিনি আরও অভিযোগ করে বলেন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সরকারি হাসপাতালের এক ডাক্তার জানান রোগী যে গণমাধ্যমকর্মী তা ডাঃ রাকিব জানত না। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ডাঃ রাকিবুল হাসান জানান, আমার মনে হয়েছে কোন ফ্রেকচার নেই। তাছাড়া অভিযোগের ব্যাপারে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ আমাকে কোন কিছু জানায় নি। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ এস এম মনজুর-ই- এলাহী প্রতিবেদককে জানান, এ বিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তিন সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়েছে। প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট হাতে পেলেই তদন্ত কার্যক্রম শুরু হবে।  এ বিষয়ে গাজীপুরের সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ খায়রুজ্জামানের সাথে একাধিকবার ফোন করলেও তিনি ফোন রিসিভ করেন নি। সড়ক দূর্ঘটনায় আহত কাজী মোহাম্মদ ওমর ফারুক দৈনিক নয়া দিগন্ত পত্রিকার কালীগঞ্জ উপজেলা সংবাদদাতা ও বাংলাদেশ নিউজ সিন্ডিকেট (বিএনএস) এর কালীগঞ্জ উপজেলা প্রতিনিধি এবং কালীগঞ্জ সাংবাদিক ইউনিয়নের আহবায়ক। দূর্ঘটনায় আহত ওমর ফারুক উক্ত ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত ও ডাঃ কাজী রাকিবুুল হাসানের বিরুদ্ধে দৃষ্ট্রান্তমূলক শাস্তি দাবী করেন।

এই বিভাগের আরো খবর