মঙ্গলবার   ২৫ জানুয়ারি ২০২২   মাঘ ১১ ১৪২৮   ২১ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

তরুণ কণ্ঠ|Torunkantho
৪৩

হাতিবান্ধায় পুলিশ হেফাজতে হিমাংশুর  রহস্যজনক মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক  

প্রকাশিত: ৯ জানুয়ারি ২০২২  

গেলো শুক্রবার সকালে ওই থানা এলাকার ভেলাগুড়ি ইউনিয়নের পূর্বকাদমা গ্রামের কৃষক হিমাংশু বর্মনের বাড়ীর তুলশি গাছের কাছে পরে থাকা সাবিত্রী রানী ছবিতার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ । পরে তার স্বামীকে  জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে থানায় নেয় থানাপুলিশ।

 
স্থানীয়রা জানান,বৃহস্পতিবার রাতে চুরি হয় তার বাড়ীতে। ওই রাতে হিমাংশু পাশের গ্রামে সাংস্কুতিক অনুষ্ঠানে যাবার কথাও শো গেছে। বাড়ীতে ছিলেন সাবিত্রী রানী (ছবিতা) তার দুই কন্যা সন্তানকে নিয়ে ঘুমের ঘরে ছিলো ।  পরে তার সন্তানের চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা তার বাড়ীতে শেষ রাতে এসে দেখে লাশ পড়ে আছে তুলশিতলায়।

 

পরে শুকবার সকালে পুলিশকে খবর দিলে হাতিবান্ধা থানা পুলিশ লাশ উদ্দঅর করে হিমাশু কে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।   এসময় তার সাথে ছিলো হিমাংশুর শ্যালক খগেণ্দ্র ও এক  শিশু কন্যা।   জানাগেছে হিমাংশুর স্ত্রী ৬-৭ মাসের অন্ত সত্বা ছিলেন।  
 পরে বিকেল ৫ টার দিকে তার পরিবারের লোকজন জানতে পারে হিমাংশু থানায় পুলিশ হেফাজতে মারাগেছে ।   এঘটনায় গোটা জেলায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।  

এব্যাপারে লালমনিরহাট পুলিশ সুপার আবিদা সুলতানার সাথে মোবাইলে কথা হলে আজ তিনি রংপুরে সরকারী কাজে থাকায় মবোইলে বলেন, বিষযটি তদন্ত চলছে এবং আরও একটি তদন্ত টিম গঠন করা হচ্ছে। তবে তিনিইলখিত এক বক্তব্যে জানান সাবিত্রীর মৃত্যুর কারণ নিশ্চিৎ জানা যায়নি তবে হিমাংশুর মৃত্যু ফাসিতে হয়েছে ।  এদিকে হিমাংশুর স্বজনরাবেলছেন সুস্থ্য হিমাংশুকে থানায় নিয়ে গেলো আর থানায় তার মৃত্যু কেমনে হলো তার সুস্ঠু তদন্ত হওয়া দরকার।  
 
এদিকে আজ শনিবার দুপুরে লালমনিরহাট সদর হাসপাতাল মর্গে দুজনের লাশ ময়না তদন্তের জন্য নিয়ে হিমাংশুর লাশ লালমনিরহাট মর্গে নেয় আর ফরেনসিক ময়না তদন্তের জন্য সাবিত্রী রাণী ছবিতার লাশ রংপুর মেডিকলে কলেজ হাসাপাতাল মর্গে পাঠান পুলিশ।  

এ চাঞ্চল্যকর ঘটনার বিষয়ে লালমনিরহাট এসপি আবিদা সুলতানা ০৭।০১।২০২২ তারিখে রএক লিখিত বক্তব্যে জানান,  
 

১। ইউনিটের নামঃথানা/জেলা: হাতিবান্ধা থানা, লালমনিরহাট।
 
২। বিষয়ঃ লালমনিরহাট জেলার হাতিবান্ধা থানার অভ্যন্তরে ফাসিতে ঝুলে মৃত্যুর সংবাদ প্রেরণ প্রসঙ্গে।

৩। ঘটনার তারিখ ও সময়ঃ ১৫.১৫ মি. ০৭/০১/২০২২ তারিখ,

৪। ঘটনাস্থলঃ  লালমনিরহাট জেলার হাতিবান্ধা থানা
৫। ঘটনার সংক্ষিপ্ত বিবরণঃ  গত-০৬/০১/২২ তারিখ দিবাগত রাত ০০:৩০(০৭/০১/২২) ঘটিকা হতে ০৭/০১/২২ তারিখ ভোর ০৫:৪৫ ঘটিকার মধ্যে যেকোন সময় লালমনিরহাট জেলার হাতীবান্ধা থানাধীন ভেলাগুড়ি ইউপির পুর্ব কাদমা মালদহ পাড়া গ্রামের মনোরঞ্জন রায় এর মেয়ে ভিকটিম সাবিত্রী রানী (৩০), স্বামী- হিমাংশু চন্দ্র রায় তার বসত বাড়ি সংলগ্ন ভিতরে তুলশী গাছের সামনে তার লাশ পাওয়া যায়। ভিকটিম অজ্ঞাত কারনে মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যায়নি। প্রাথমিকভাবে ধারনা করা যায় এটা হত্যাজনিত ঘটনা। মৃত্যুর কারণ উদঘাটন করার চেষ্টা অব্যাহত রাখার জন্য ওসি হাতিবান্ধা ঘটনাস্থলে গমন করেন এবং  মৃত ভিকটিমের স্বামী হিমাংশু বর্মণ, পিতা শ্রী বিমল বর্মণ, কন্যা পিংকি রানী , পিতা হিমাংশু বর্মণ, এবং ভিকটিমের ভাই শ্রী খগেন রায় গনের নিকট হতে এজাহার গ্রহণ ও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে আসেন। তাকে থানার নারী ও শিশু হেল্প ডেস্কের কক্ষের ভিতরে রাখিয়া জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। কিছু সময় জিজ্ঞাসাবাদের পর অফিসারগণ দুপুরের খাবার গ্রহনের জন্য গেলে দুপুর আনুমানিক  ১৫.১৫ থেকে ১৫.৪৫ ঘটিকার মধ্যে যেকোন সময়  উক্ত হিমাংশু চন্দ্র রায় থানার নারী ও শিশু হেল্প ডেস্কের ভিতরে থাকা ব্রডব্যান্ডের তার গলায় পেচিয়ে উত্তর দিকের জানালার গ্রীলের সাথে ফাস লাগাইয়া আত্মহত্যা  করেন। আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক আছে। গোপন নজরদারি অব্যাহত আছে।
৬। ক্ষয়ক্ষতি, আহত/ নিহত প্রভৃতিঃ
৭। পুলিশ কর্তৃক গৃহীত ব্যবস্থা(মামলা/জিডি): এ সংক্রান্তে  আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।   
 

এই বিভাগের আরো খবর