এই দিন

সোমবার   ১৮ জানুয়ারি ২০২১   মাঘ ৪ ১৪২৭   ০৪ জমাদিউস সানি ১৪৪২

তরুণ কণ্ঠ|Torunkantho
৩০

বসুরহাট পৌরসভা নির্বাচনের দিকে আন্তর্জাতিকভাবে সবাই তাকিয়ে আছে

তরুণ কণ্ঠ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১২ জানুয়ারি ২০২১  

বসুরহাট পৌরসভার মেয়র প্রার্থী আবদুল কাদের মির্জা বলেছেন, বসুরহাট পৌরসভা নির্বাচনে ১০% ভোট অনিয়ম করার সুযোগ আছে। পোলিং অফিসার, প্রিজাইডিং অফিসার সব বিএনপি জামায়াতের লোক। ডিসি, এসপি ও নির্বাচন কমিশনারসহ এ ১০% ভোট অনিয়ম করার চেষ্টা করছে। বসুরহাট পৌরসভার এ নির্বাচনের দিকে আন্তর্জাতিকভাবে সবাই তাকিয়ে আছে। তারা এ ভোটকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে চায়।

মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে বসুরহাট পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডের শহীদ নুরুল হক অডিটোরিয়ামে মহিলা আওয়ামী লীগের এক কর্মীসভায় এসব কথা বলেন তিনি।

আবদুল কাদের মির্জা বলেন, আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র চলছে, ভোটের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র চলছে, ভোটকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে চেষ্টা করছে একরাম চৌধুরী। একরাম চৌধুরী তার ঘনিষ্ঠ নোয়াখালী পৌরসভার বিএনপির সাবেক মেয়র হারুনুর রশিদকে গতকাল সন্ধ্যার পর বিএনপির মেয়র প্রার্থী কামাল উদ্দিন চৌধুরী ও কাউন্সিলরদেরকে টাকা দিয়ে গেছে, আমাকে হারানোর জন্য টাকাগুলো দিয়েছে একরাম চৌধুরী।

তিনি বলেন, একরামের লোক, নিজাম হাজারীর লোক ভোটের দিন এ এলাকায় ষড়যন্ত্র করতে আসবে। আপনার লাঠি নিয়ে প্রস্তুত থাকবেন। শুধু তাদের গিরার নিচে পেটাবেন। একবারে মেরে ফেলবেন না, বাকিটা আমি দেখব। ভোট হবে শতভাগ সুষ্ঠু, কোনো অনিয়ম বরদাশত করা হবে না। 

আবদুল কাদের মির্জা আরও বলেন, একরাম চৌধুরী ও নিজাম হাজারী মদ, জুয়া ও নারী নিয়ে থাকে। হাওয়া ভবনের জট তারেক জিয়া একই পথের পথিক, খালেদা জিয়া ঘরে ঢুকে গেছে, জামায়াতে ইসলামী আরও ৫০ বছর অন্যদলের কোলবালিশ হিসেবে ব্যবহার হবে। এখন শুধু মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশ পরিবর্তন করতে পারবেন।

এই বিভাগের আরো খবর