মঙ্গলবার   ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১   আশ্বিন ১৩ ১৪২৮   ২০ সফর ১৪৪৩

তরুণ কণ্ঠ|Torunkantho
২০৪

প্রথম স্ত্রী রেখে দ্বিতীয় বিয়ে: স্ত্রীর মাললায় স্বামী রহিম জেলে

জাকির হোসেন সুমন সিলেটঃ

প্রকাশিত: ১০ সেপ্টেম্বর ২০২১  

সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার সীমান্ত এলাকার পূর্ব জাফলংয়ের মুসলিম নগর গ্রামের এক হতদরিদ্র গরীব অসহায় দিনমজুর পরিবারের মেয়ে মোসাঃ লাকি আক্তার বাদি হয়ে সিলেট সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে যৌতুকের মামলা করে স্বামী আব্দুর রহিম এ-র বিরুদ্ধে দ্বিতীয় বিয়ে ও যৌতুক নারী নির্যাতন মামলা করেন,ইউনিয়নের নলজুরী গ্রামের আব্দুল হেকীমের ছেলে আব্দুর রহিম বিরুদ্ধে এবং আদালত মামলা আমলে নিয়ে স্বামীকে জেলহাজতে প্রেরণ করে।

বিয়ের সময় মোসাঃ লাকি আক্তারের বাবা-মা ও আত্মীয়-স্বজনরা উপহার হিসেবে দুই লক্ষ টাকার মালামাল দেন আদরের মেয়ের সাথে।মেয়ে খুব সুখী হবে এমনটিই ছিল তাদের ধারণা। কিন্তু না বিয়ের বছরের মাথায় লাকি আক্তারের একটি মেয়ে সন্তান জন্ম হয় এরেই মধ্যেই স্বামীসহ পরিবারের সদস্যদের দেখা দেয় আসল রূপ দৈনিক লাকি আক্তারের উপরে পাষণ্ড স্বামী যৌতুকের জন্য মারধর নির্যাতন এবং প্রতিদিন হুমকি দিয়ে যেত সে দ্বিতীয় বিয়ে করবে ঠিক তেমনটাই করেছে পাষণ্ড স্বামী দ্বিতীয় বিয়ে করে ফেলে।
 
লাকির স্বামী লাকি কে চাপ দেন দ্বিতীয় বিয়ের পরেও বাবার বাড়ি থেকে দুই লাখ টাকা এনে দেয়ার জন্য। স্বামীর আবদার আর মন রক্ষায় জন্য বাবার শেষ সম্বল কৃষি জমি বিক্রি করে মেয়ের সুখের জন্য দুই লাখ টাকা তুলে দেন স্বামীর হাতে। টাকা দেওয়ার পর কিছুদিন সুখে শান্তিতে অতিবাহিত হয় লাকি আক্তারের। কিন্তু সে সুখ বেশি দিন স্থায়ী হয় না। স্বামী ও সতীনের অত্যাচার এবং নির্যাতনের শিকার হয়ে এক সন্তানের জননী মোসাঃ লাকি আক্তার বাবার বাড়িতে এসে উঠে। 


লাকি আক্তারের স্বামী ও সতীনের পরিবারের সদস্যদের কুপরামর্শে তার কাছে আরো দুই লাখ টাকা দাবি করেন। লাকি তার বাবার বাড়িতে টাকা নেই জানালে শুরু হয় তার উপর নির্মম নির্যাতন। স্বামী,ও তার পরিবারে মিলে তার উপর চালান মানসিক ও শারীরিক নির্যাতন।
 
শ্বশুর বাড়িতে স্বামীর মারপিট নির্যাতন যৌতুকের  চাপ সহ্য করতে না পেরে চিৎকার করে কান্না করেন অসহায় পরিবারের এক সন্তানের জননী লাকি আক্তার। তখন তার মুখে কাপড় দিয়ে চেপে ধরে একের পর এক আঘাত করেন পাষণ্ড  স্বামী আব্দুর রহিম।


এরই মধ্যে স্বামীর পরিবার লাকির স্বর্ণালঙ্কারসহ ব্যবহারের যাবতীয় জামা-কাপড় কব্জা বন্দি করে ফেলেন। লাকির বাবা বাড়ি থেকে এসে এক ঘরের বারান্দা থেকে উদ্ধার করে নিয়ে আসেন বাবার বাড়িতে লাকিকে।এর পরে তার বাবা স্থানীয় মেডিক্যালে চিকিৎসা করায় শারীরিক অবস্থা খারাপ দেখে ঔষধপত্র লিখে দেন ডাক্তাররা অবস্থার অবনতি ঘটলে হাসপাতালে ভর্তির পরামর্শও দেন। 

ওষুধে সুস্থ হলে পরবর্তীতে আবারও তাকে ডাক্তার দেখানোর কথা জানান। লাকি আক্তার তার স্বামীর যৌতুকের নির্যাতন ও দ্বিতীয় বিয়ের মর্মে জানান এমন নির্মম ঘটনার বর্ণনা দিয়ে  সিলেট সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ঘাতক স্বামী আব্দুর রহিম এ-র বিরুদ্ধে দ্বিতীয় বিয়ে যৌতুকের ও নারী নির্যাতন মামলা করে এবং আদালত মামলা আমলে নিয়ে ঘাতক স্বামীকে আটক করে আদালত।

মামলায় আসামি করেছেন তার স্বামী আব্দুর রহিম কে।
 
লাকির অসহায় বাবা অভিযোগ করেন,আমার মেয়েকে তার স্বামী,সব সময় যৌতুকের জন্য  নির্যাতন করে আসছে। প্রতিদিন আমার মেয়েটাকে টাকার জন্য স্বামী মারধর করে। আমার মেয়ে মামলা করার পর তার স্বামী আব্দুর রহিম কয়েক বার আমাকে ও আমার মেয়ে কে সিলেট আদালত ও এলাকায় জানে মারার জন্য আক্রমণের চেষ্টা করে। আমি অবিলম্বে তার শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।
 
এ ব্যাপারে সিলেট কোর্টে থাকা সংবাদকর্মীরা মোসাঃ লাকি আক্তার ও তার বাবা আলাল উদ্দিন,ও মামলার সাক্ষীগণের কাছে এসব সত্যতা জানতে পারে ,স্ত্রী নির্যাতন ও যৌতুক দাবি ও পাষণ্ড স্বামী দ্বিতীয় বিয়ে করায় মোসাঃ লাকি আক্তার নিজে বাদী হয়ে মামলা করেছেন এবং ঘাতক স্বামী কে আদালত আটক করে জেল হাজতে ফেরন করেন।

এই বিভাগের আরো খবর