বৃহস্পতিবার   ০১ অক্টোবর ২০২০   আশ্বিন ১৫ ১৪২৭   ১২ সফর ১৪৪২

তরুণ কণ্ঠ|Torunkantho
১৩৪

গাজীপুরে স্মার্টফোন কিনে না দেওয়ায় স্কুলছাত্রের আত্মহত্যা

মোঃ রায়হান মিয়া মৃধা

প্রকাশিত: ১২ সেপ্টেম্বর ২০২০  

মোবাইলে গেমস খেলার জন্য স্মার্ট ফোন কিনে না দেওয়ার জন্য বাবা-মায়ের সাথে অভিমানে আত্মহত্যা করেছে সপ্তম শ্রেণীতে পড়ুয়া এক শিক্ষার্থী।

ঘটনাটি ঘটেছে গাজীপুরে বাসন থানা এলাকায়। নিহত ওই স্কুল ছাত্রের নাম জিহাদুল ওরফে শাফায়াত (১৩)।

গেম খেলার জন্য স্মার্ট মোবাইল ফোন কিনে না দেওয়ায় জিহাদুল ইসলাম ওরফে শাফায়েত (১৩) নামের স্কুলছাত্র গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। জিহাদুল গাজীপুর সিটি করপোরেশনের বাসন থানার ভোগড়া দক্ষিণপাড়া এলাকার রফিকুল ইসলাম এর ছেলে। সে স্থানীয় ইন্ডিপেন্ডেন্ট স্কুলের ৭ম শ্রেণির ছাত্র ছিল।

শনিবার (১২ সেপ্টেম্বর) দুপুরে পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করে। গাজীপুর মেট্রোপলিটন (জিএমপি’র) বাসন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন (জিএমপি’র) বাসন থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ইব্রাহিম খলিল জানান, নিহতের বাবা থাই গ্লাসের একটি দোকানে মিস্ত্রির কাজ করেন। এ বছর এসএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ায় জিহাদের বড় ভাইকে মোবাইল ফোন কিনে দেন তিনি। তারপর থেকে গেমস খেলার জন্য স্মার্ট মোবাইল ফোন কিনে দিতে বাবা-মায়ের কাছে বায়না ধরে জিহাদ। কিন্তু কলেজে ভর্তি হওয়ার আগে মোবাইল ফোন কিনে দিতে অস্বীকৃতি জানান তার বাবা-মা।

শুক্রবার (১১ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যার পর পুনরায় বায়না ধরলে জিহাদকে বকাঝকা করেন তার মা শীলা আক্তার। এতে মায়ের উপর ক্ষুব্ধ হয়ে সে। রাত ৯টার দিকে খাবার খাওয়ার জন্য জিহাদকে ডাকাডাকি করতে থাকেন মা। কিন্তু সাড়া শব্দ না পেয়ে খুঁজতে গিয়ে পাশের কক্ষের আড়ার সঙ্গে গলায় রশি পেঁচানো অবস্থায় জিহাদকে ঝুলতে দেখেন তিনি। স্বজনরা তাকে উদ্ধার করে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন (জিএমপি’র) বাসন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম জানান, খবর পেয়ে পুলিশ শনিবার দুপুরে নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ওই হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করে।

এই বিভাগের আরো খবর