ব্রেকিং:
প্রথম পর্বে ১০ হাজার ৭৮৯ জন রাজাকারের তালিকা প্রকাশ করেছে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়

রোববার   ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯   পৌষ ১ ১৪২৬   ১৭ রবিউস সানি ১৪৪১

তরুণ কণ্ঠ|Torunkantho
৪২৮

হিজাবের সাথে চাই মানানসই পোশাক

প্রকাশিত: ৬ মে ২০১৯  

বর্তমানে বাংলাদেশি মেয়েরাও পছন্দের পোশাকের সঙ্গে বেছে নিচ্ছেন হিজাব। বর্তমানে সব বয়সী মেয়েরাই যেকোনো উপলক্ষে জামার সঙ্গে পরছেন হিজাব। আগে জামার রঙয়ের মিল রেখে হিজাব কিনতো মেয়েরা। এখন হিজাবের সঙ্গে মানিয়ে জামা কিনছে তারা। কারণ ফ্যাশন ট্রেন্ডে এখন পোশাকের আগে হিজাবকে প্রাধান্য দেয়া হচ্ছে।


মেয়েরা ভিন্নধর্মী কামিজ কিংবা জামা চাইছেন যাতে হিজাবের সঙ্গে জামা মানানসই হয়। এক থেকে দুই বছর আগেও মেয়েরা কামিজে অতিরিক্ত গলা থেকে হাটু পর্যন্ত কারুকাজ চাইতো। কিন্তু এখন তাদের রুচি বদলেছে। অধিকাংশ মেয়েই এখন হিজাব পরে, হিজাবের কারণে তাদের জামার অর্ধেকটা ঢেকে থাকে। একারণে একটু নিচে থেকে কাজ চায় তারা।

তাই পোশাকটা এমন হওয়া চাই যেটার সাথে হিজাব পরলে হিজাব পরাটাকে আরুং ফ্যাশনেবল লাগবে। শুধু পোশাক নয়, পোশাকের সাথে সাথে জুতা, স্যান্ডেলও এমন হওয়া চাই যেটা ড্রেস-আপের সাথে ভালোভাবে মানিয়ে যায়।

আর চাকুরির ইন্টাভিউতে নিজেকে প্রমাণ করতে সময় পাওয়া যায় খুব কম। তাই ইন্টারভিউ বোর্ডের প্রশ্নকর্তাদের প্রসন্ন করতে সহায় হয় রুচিশীল, আধুনিক, পরিচ্ছন্ন, অভিজাত এবং চাকুরি সংশ্লিষ্ট বা সহায়ক পোশাক। ধর্মীয় রীতিনীতি মেনে হিজাব পরলে ইন্টারভিউতে ইমপ্রেশন নষ্ট হবে- এমন ধারণা ভুল। বরং হিজাবের সঙ্গে মানানসই রক্ষণশীল পোশাকে হয়ে উঠতে পারেন অনন্যা।

তবে কোন চাকুরিতে কোন ধরনের পোশাক মানানসই- তা ভাবার বিষয়। চাকুরিভেদে বদলে যায় পোশাকের ধরন, পরিবর্তন হয় হিজাবের ডিজাইন এবং পরিধানের পদ্ধতি। তাই আগেই জেনে নিন চাকুরির ইন্টারভিউতে কোনো পেশায় হিজাবের সঙ্গে কিভাবে হয়ে উঠবেন আকর্ষনীয়।

হিজাব ব্যবহারের ক্ষেত্রে পোশাকের রং ও ধরনকে মাথায় রেখে হিজাব বাছাই করতে হবে। পোশাকের রঙের সাথে মিলিয়ে বা বিপরীত রঙের হিজাব ব্যবহার করতে পারেন। যদি পোশাকটি বেশি নকশা করা বা প্রিন্টের হয় তবে সে ক্ষেত্রে একরঙা হিজাব নির্বাচন করুন। আবার পোশাকটি হালকা কাজের বা একরঙা হলে তার জন্য বেছে নিন বিপরীত রঙের বা নকশা করা ও প্রিন্টের হিজাব।

এই বিভাগের আরো খবর