বুধবার   ২৫ মে ২০২২   জ্যৈষ্ঠ ১১ ১৪২৯   ২৩ শাওয়াল ১৪৪৩

তরুণ কণ্ঠ|Torunkantho
১৫০

তিন সপ্তাহ পার হলেও চোর সনাক্ত করতে পারেনি পুলিশ!

লাকসাম প্রতিনিধিঃ

প্রকাশিত: ২১ এপ্রিল ২০২২  

থানার ৩’শ মিটারের মধ্যে দুর্ধর্ষ চুরি

কুমিল্লার লাকসামে ভাইয়া গ্রুপের  প্রতিষ্ঠানে দূর্ধর্ষ চুরির ঘটনায় তিন সপ্তাহ পার হলেও  এখনো কাউকে সনাক্ত করতে পারেনি পুলিশ! তবে চুরির ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের সনাক্ত করে গ্রেপ্তারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

জানা যায়, গত ২৯ মার্চ রাতে কুমিল্লার লাকসাম পৌরশহরের উত্তর বাজারে গ্রামীনফোন লিমিটেডের পরিবেশক মেসার্স মাসুম টেলিকমে অভিনব কায়দায় দূর্ধর্ষ চুরির ঘটনা ঘটে। দূর্বৃত্তরা ভাইয়া গ্রুপের সহযোগি প্রতিষ্ঠান মাসুম টেলিকমের প্রধান কার্যালয়ের পিছনে অভিনব কায়দায় জানালার লোহার গ্রীল কেটে ওই ভবনের ২য় তলায় মাসুম টেলিকম, ৩য় তলায় সাফওয়ান সেন্টার ক্যাশ এবং ৪র্থ তলায় ভাইয়া গ্রুপের কর্পোরেট শাখার বিভিন্ন অফিসের মালামাল তছনছ করে নগদ টাকা, ডাটা কার্ড ও সীম কার্ডসহ প্রায় অর্ধকোটি টাকা নিয়ে যায়।

ঘটনার পর পর ওই প্রতিষ্ঠানের সাফওয়ান সেন্টারের হিসাবরক্ষক মাকছুদুর রহমান বাদী হয়ে অজ্ঞাত দূর্বৃত্তদের বিরুদ্ধে লাকসাম থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। ওই ঘটনার দীর্ঘ তিন সপ্তাহ পার হলেও এখনো কাউকে সনাক্ত করা যায়নি।

এ বিষয়ে গ্রামীনফোন লিমিটেডের পরিবেশক মেসার্স মাসুম টেলিকমের জেনারেল ম্যানেজার মো. শহিদ উল্যাহ বলেন, প্রতিষ্ঠানের চারতলা ভবনের সবকটি অফিসরুমে থাকা ষ্টীলের আলমিরা, ফাইল কেবিনেট, সেক্রেটায়েট টেবিলের ড্রয়ার, ক্যাশ সিন্দুকের দরজা ও লকার ভেঙ্গে বিভিন্ন ফ্লোর থেকে গ্রামীণফোনের ডাটা কার্ড, সীম কার্ড এবং গুরুত্বপূর্ন কাগজপত্রসহ প্রায় ৩৫ লাখ টাকা নিয়ে যায় অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে লাকসাম সার্কেলের সহকারি পুলিশ সুপার মহিতুল ইসলাম জানান, লাকসাম উত্তর বাজারে অবস্থিত ভাইয়া গ্রুপের সহযোগি প্রতিষ্ঠান মাসুম টেলিকমসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠানে চুরির ঘটনায় থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। দূর্বৃত্তদের সনাক্ত করতে পুলিশের একাধিক টিম কাজ করছে। আমরা বিভিন্ন মাধ্যমে এ ঘটনার তদন্ত চালিয়ে যাচ্ছি। আশা করছি কিছুদিনের মধ্যে এ ঘটনায় জড়িতদের আটক করতে সক্ষম হবো।

এই বিভাগের আরো খবর