বৃহস্পতিবার   ১৮ জুলাই ২০২৪   শ্রাবণ ২ ১৪৩১   ১১ মুহররম ১৪৪৬

কয়েকটি ধর্মীয় সংগঠনের বিরুদ্ধে ঢাকেশ্বরী মন্দির দখলের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত : ০৮:১৮ পিএম, ১১ মে ২০২৩ বৃহস্পতিবার

ঢাকেশ্বরী মন্দিরে সেবায়েত পরিবারের লিখিত অনুমতি নিয়ে পূজা করতে আশা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ নেতাদের বিরুদ্ধে মন্দির দখলের অভিযোগ। শ্রী শ্রী
ঢাকেশ্বরী মন্দিরে লিখিত অনুমতি নিয়ে পূজা করতে আসেন মহানগর পূজা কমিটি। আবেদনের প্রেক্ষিতে কিছু সময় পূজা করলেও এখন এই মন্দিরে নিজেদের
অবস্থান শক্ত করে বাণিজ্যিক ও সাংগঠনিক কার্যক্রম চালাচ্ছে এই সংগঠন। কতিপয় ব্যক্তি বিভিন্ন জেলা হতে ঢাকেশ্বরী মন্দিরের পূজা করতে এসে মহানগর
পূজা কমিটির সাথে সম্পৃক্ত হয়ে উক্ত কমিটির সর্বোচ্চ পদ ধারণ করে পরবর্তীতে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের ও হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের গুরুত্বপূর্ণ
পদ ধারণ করছে। মহানগর পূজা কমিটি হতে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ হেত হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ এরা সকলেই ঘূর্ণায়মান চক্র অর্থাৎ মহানগর
পূজা কমিটির উচ্চপদস্তরাই উদযাপন ঐক্য পরিষদে মুলায়ন পায় যেমন- মনিন্দ্র কুমার দেবনাথ বর্তমানে সে মহানগর পূজা কমিটির সভাপতি একই সাথে উদযাপন
পরিষদের সহ সভাপতি, হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সহ সাধারণ সম্পাদকের পদ ব্যবহার করছেন। (এক কথায় যে লাউ সেই কদু) ঢাকেশ্বরী মন্দিরে বসবাস করতে থাকা সেবাযেত পরিবারের উদ্দেশ্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর অনুদান মন্দিরের পার্শে ৬ তলা লাল দালানটি অফিস হিসেবে ব্যবহার করছেন এই দুই সংগঠন এবং এই চক্রের প্রাক্তন ও বর্তমান সদস্যরা। ২০১৮ সনে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ঢাকেশ্বরী মন্দিরকে অনুদান হিসেবে ১.৫ বিঘা সম্পত্তি দিলে তা ¶মতার অপব্যবহার করে নিজেদের নামে দলিল করে নেন উপরুক্ত ব্যক্তিগণ, যদিও দেবত্তর সম্পত্তির মালিক হচ্ছে দেবতার প¶ে জেলাপ্রশাসক অথবা সেবায়েত। সকল দুর্নীতি ও অনিয়মের বিরুদ্ধে মহামান্য আদালতে রিট পিটিশন প্রে¶িতে রুল আদেশ চলমান থাকলেও প্রায় অর্ধ কোটি টাকার অপরিকল্পিত উন্নয়নের নামে মন্দির অভ্যন্তরে বাণিজ্যিক ভবন নির্মাণের কাজ চলছে। এ ব্যাপারে ভূক্তভোগীর আইনজীবী খুরশিদ আলম খান বলেন, মন্দিরের নানান অনিয়ম ও দুর্নীতির বিষয়টি উচ্চ আদালতের নজরদারিতে রয়েছে। ঢাকেশ্বরী মন্দির এলাকায় স্থানীয় বাসিন্দাদের সাথে আলাপ করে জানা যায় এই মন্দিরের জমি সংক্রান্ত একমাত্র ওয়ারিশ সেবায়েত পরিবার মন্দির থেকে সম্মান ও অধিকার বঞ্চিত হয়ে আছে, একটি সঙ্ঘবদ্ধ গোষ্ঠী বা চক্রের কাছে সেবায়েত পরিবার অত্যন্ত অসহায়। ঢাকেশ্বরী মন্দিরের চলমান অনিয়ম ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হস্ত¶েপ প্রশাসক নিয়োগের দাবি জানান ভুক্তভোগী সেবায়েত পরিবার ও স্থানীয় বাসিন্দারা।