বুধবার   ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ২ ১৪২৬   ১৮ মুহররম ১৪৪১

তরুণ কণ্ঠ|Torunkantho
সর্বশেষ:
প্রধানমন্ত্রী ‘রাজহংস’ উদ্বোধন করবেন মঙ্গলবার দাবি না মানলে বিদ্যালয়ে তালা লাগাবে প্রাথমিকের শিক্ষকরা প্রধানমন্ত্রী রাজশাহী যাচ্ছেন রোববার লাকসামে কিশোর গ্যাং এর ৬ সদস্য গ্রেফতার খাল উদ্ধারের পর চালু হবে ওয়াটার ট্রান্সপোর্ট : তাজুল ইসলাম ড্রিমলাইনার ‘রাজহংস’ এখন ঢাকায় শেখ হাসিনার একান্ত প্রচেষ্টায় ৫০০ মডেল মসজিদ বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে নতুন ডিএমপি কমিশনারের শ্রদ্ধা
১৫

মহাসড়কে পৃথক লেন নির্মাণের দাবিতে চান্দিনায় মানববন্ধন

চান্দিনা (কুমিল্লা) প্রতিনিধি   

প্রকাশিত: ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

সড়কের পাশে থ্রি-হুইলার চলাচলের জন্য পৃথক লেন নির্মাণের দাবিতে কুমিল্লার চান্দিনায় মানববন্ধন করেছে চালক ও শ্রমিকরা। আজ বুধবার সকাল ১১টায় মহাসড়কের চান্দিনা উপজেলাধীন কাঠেরপুল এলাকায় ওই মানববন্ধন শেষে বিক্ষোভ মিছিল করে তারা। তাদের দাবিগুলো বাস্তবায়নের জন্য সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করে কুমিল্লা জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। মানববন্ধনে কুমিল্লা উত্তর জেলা সিএনজি ও ব্যাটারী চালিত অটোরিক্সা মালিক চালক ঐক্য পরিষদ আহ্বায়ক শ্রমিক নেতা মো. মমতাজ উদ্দিন মজুমদার বলেন, ‘রাস্তা আছে যেখানে, রিকশা চলবে সেখানে। মহাসড়কের পাশে অনেক সংযোগ সড়ক আছে। যাত্রীরা বা পণ্য পরিবহনে ওই সংযোগ সড়কগুলো থেকে স্টেশন এলাকায় পৌঁছতে সিএনজি-ব্যাটারিচালিত রিকশা বা ভ্যানের বিকল্প নেই। কিন্তু মহাসড়কের পাশে পৃথক লেন তৈরি না করে মহাসড়ক থেকে থ্রি-হুইলার নিষিদ্ধ করে জনদুর্ভোগ সৃষ্টি করা হয়েছে। যাত্রী ও পণ্য পরিবহনের জন্য বাধ্য হয়ে এবং চালকরা পেটের দায়ে রিকশা নিয়ে মহাসড়কে উঠলেই তাদের রিকশাগুলো নিয়ে যায় পুলিশ। গত চার বছরে শুধুমাত্র চান্দিনার ডাম্পিং গ্রাউন্ডে প্রায় সাড়ে ৩ হাজার সিএনজি ও ব্যাটারিচালিত অটোরিকশাসহ প্যাডেল রিকশা ফেলে রেখে সেগুলো নষ্ট করা হচ্ছে। তিনি আরো বলেন, কোন রিকশাচালকই ধনী নয়। বিভিন্ন এনজিও থেকে লোন নিয়ে রিকশা কিনে মাথার ঘাম পায়ে ফেলে জীবিকা নির্বাহ করে রিকশাচালকরা। তাদের রিকশাগুলো ডাম্পিং গ্রাউন্ডে ফেলে রেখে তাদের আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করা হচ্ছে। শ্রমিক নেতা মমতাজ উদ্দিন বলেন, আমরা অবিলম্বে আটক সিএনজি ও ব্যাটারিচালিত রিকশাগুলো শুধুমাত্র রেকার বিল নিয়ে ফেরত দিয়ে এবং মহাসড়কের পাশে থ্রি-হুইলার চলাচলে পৃথক লেন নির্মাণ করে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা বাস্তবায়নের দাবি জানাচ্ছি। এ সময় একই বক্তব্য তুলে ধরে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তৃতা করেন শ্রমিক মজনুর রহমান, মনছুর আহমেদ, আবুল হোসেন প্রমুখ।
 

এই বিভাগের আরো খবর