শুক্রবার   ১৫ নভেম্বর ২০১৯   কার্তিক ৩০ ১৪২৬   ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

তরুণ কণ্ঠ|Torunkantho
১২৫

বর্ষায় বেড়েছে ‘ছাতা’ ও ‘রেইনকোট’ কদর

তরুণ কন্ঠ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১১ জুলাই ২০১৯  

সময়-অসময় চারিদিকে এখন মেঘ-বৃষ্টির দাপট। গত কয়েকদিনের টানা বর্ষণে ঘর থেকে বের হওয়াই দুরূহ হয়ে পড়েছে। খুব বেশি প্রয়োজন ছাড়া বা বিপাকে না পড়লে বৃষ্টি মাথায় নিয়ে কেউ ঘর থেকে বের হচ্ছে না। আর মুষলধারায় বৃষ্টিতে ঘর থেকে বের হতে ছাতা কিংবা রেইনকোটের বিকল্প নেই। সেজন্য এই আষাঢ়ের বৃষ্টিতে কদর অনেক বেড়েছে ছাতা ও রেইনকোটের।


শ্রমজীবী, কর্মজীবী ও স্কুল-কলেজে শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষের এখন একমাত্র সঙ্গী ছাতা কিংবা রেইনকোট।

টানা বৃষ্টির ফলে নেত্রকোণায় দোকানগুলোতে বেড়েছে ছাতা বিক্রি। শহরের ছোটবাজার এলাকার বিভিন্ন ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে কথা বলে জানা যায়, বছরজুড়ে যে পরিমাণ ছাতা বিক্রি হয়, তা গত ৪-৫ দিনে দ্বিগুণ বিক্রি হয়েছে।

বাজারের ব্যবসায়ী বাদল স্টোরের মালিকের ছেলে বিশ্বজিৎ সাহা বাংলানিউজকে বলেন, টানা বৃষ্টির কল্যাণে চারদিনে এক হাজার ২০০টি ছাতা বিক্রি হয়েছে। তবে টানা এ বৃষ্টিতে স্কুল-কলেজে পড়ুয়া শিক্ষার্থীর রেইনকোট কিনতে আগ্রহ দেখাছে। বেশিরভাগ শিক্ষার্থীই রেইনকোট কিনছেন। অল্পসময়ে অধিক পরিমাণ ছাতা ও রেইনকোট বিক্রি করতে পেরে ব্যাপক খুশি এ ব্যবসায়ী।

বিশ্বজিতের প্রতিবেশী দোকানি রূপালি স্টোরের নিরঞ্জন সাহা বাংলানিউজকে একই কথা জানান। তিনি বলেন, গত কয়েকদিনের বৃষ্টিতে এ পর্যন্ত প্রায় হাজারের উপরে ছাতা বিক্রি হয়েছে। পাশাপাশি রেইনকোটের বিক্রিও ভালো। মোটরসাইকেল চালাকরা ঝুঁকছেন রেইনকোটের দিকে। 

ব্যবসায়ী বিশ্বজিৎ রেইনকোট ও ছাতার দাম সম্পর্কে জানান, প্রতিটি ছাতার মূল্য ২৮০ থেকে ৪৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। সাধারণ প্যান্টসহ রেইনকোটের দাম ৪৫০ থেকে ৫০০ টাকা। আর একটু ভালো রেইনকোটের দাম পড়বে ৭০০ থেকে এক হাজার ৮০০ টাকার মধ্যে।

বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদফতরের রাডার অপারেটর নাজমুল হক জানান, নেত্রকোণায় চারদিনে ১৮৬ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। এরমধ্যে সোমবার (০৮ জুলাই) বৃষ্টিপাতের পরিমাণ ২৮ মি.মি, মঙ্গলবার (০৯ জুলাই) ৫৭ মি.মি, বুধবার (১০ জুলাই) ৪৩ মি.মি ও বৃহস্পতিবার (১১ জুলাই) সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত বৃষ্টি হয়েছে ৫৮ মিলিমিটার।

এই বিভাগের আরো খবর