শুক্রবার   ১৯ জুলাই ২০১৯   শ্রাবণ ৩ ১৪২৬   ১৬ জ্বিলকদ ১৪৪০

তরুণ কণ্ঠ|Torunkantho
সর্বশেষ:
বগুড়ায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২ সোমালিয়ায় হোটেলে জঙ্গি হামলায় সাংবাদিকসহ নিহত ৭ জামালপুরে ‘মাথা নেওয়ার গুজবে’ যুবক গ্রেপ্তার সিলেট–সুনামগঞ্জে বন্যা পরিস্থিতি অপরিবর্তিত আসামে বন্যায় আক্রান্ত ৮ লাখ মানুষ, নিহত ৬ কাপ্তাইয়ে পাহাড় ধসে নিহত ২
১৮৯

নারী শ্রমিকের ইজ্জতের মূল্য ১৫ হাজার টাকা!

গাজীপুর প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ৮ এপ্রিল ২০১৯  

গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলায় এক নারী শ্রমিকের ইজ্জতের মূল্য ১৫ হাজার টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। পাশপাশি সালিশে ওই নারী শ্রমীকের প্রেমিক জনি মিয়া (২৩) পালিয়ে যাওয়ার অপরাধে জনির বন্ধু রফিকুল ইসলামকে এই জরিমানা ধার্য্য করেন স্থানীয় ইউপি সদস্য আব্দুল আজিজ। রফিকুল ওই টাকা দিতে অস্বীকার করলে তাকে প্রকাশ্যে মারপিট করা হয়েছে। ৭এপ্রিল রবিবার রাত ১১টার দিকে উপজেলার ধনুয়া বড়চালা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।
রফিকুল ইসলাম জানান, জনির সাথে ওই মেয়ের দীর্ঘ দিনের প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে। কয়েকদিন আগে জনি ওই মেয়েকে বিয়ে করবে বলে মেয়েকে নিয়ে আসে। বিষয়টি এলাকায় জানাযানি হলে,স্থানীয় মেম্বার সালিশের মাধ্যমে বিয়ের আয়োজনের করেন। পরে মেয়েকে রেখে জনি পালিয়ে যায়। জনি পালিয়ে যাওয়ার পর মেম্বার আমাকে ধরে এনে ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন। এসময় অনেক জায়গা থেকে,কষ্ট করে  ধার নিয়ে ১০ হাজার টাকা দিয়েছি। বাকী ৫ হাজার টাকা দেওয়ার জন্য সময নেওয়া হয়েছে স্থানীয় মেম্বারের কাছ থেকে।
এ ঘটনায় রবিবার রাত ১১টার সময় সালিশ বসে। এতে স্থানীয় ইউপি সদস্য আব্দুল আজিজ, জৈনাবাজার কাঠ ব্যবসায়ী আফির উদ্দিন, ফার্নিচার দোকান্দার মুজিবর, এবং ৪নং ওয়ার্ডের গ্রাম পুলিশসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।
সালিশে ঘটনার সত্যতা পেয়ে এবং জনিকে না পেয়ে সালিশকারীরা জনির বন্ধু রফিকুল ইসলামকে ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন। এছাড়া তাকে প্রকাশ্যে শারিরীকভাবে লাঞ্চিত করেন। 
তবে ওই নারী শ্রমিকের ভাই জানান, এ ঘটনায় তার পরিবারের লোকজন মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছে। সামাজিক ও লোক-লজ্জার ভয়ে এবং জরিমানার টাকা বুঝে পেয়ে তার বোনকে গ্রামের বাড়িতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।
৪নং ওয়ার্ড সদস্য আব্দুল আজিজ জানান,জনির সাথে ওই মেয়ের প্রেমের সম্পর্ক ছিল,বিয়ের কথা বলে মেয়েকে নিয়ে আসে জনি। কিন্তু বিয়ে না পড়িয়ে ওই মেয়েকে জনির বন্ধু রফিকুলে ভাড়া বাসায় রাখে। পরে বিষয়টি এলাকায় জানাযানি হলে,জনিকে পালিয়ে যেতে সহযোগিতা করেছে রফিকুল। জনিকে পালিয়ে যাওয়ার সহযেগিতা করার অপরাধে তার বন্ধু রফিকুলকে ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।
৮এপ্রিল সরেজমিনে ওই এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, এ ঘটনায় সাধারণ লোকজনের মধ্যে চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে। তবে সমাজপতিদের ভয়ে কেউ মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছে না।
শ্রীপুর থানার  অফিসার ইনর্চাজ (ওসি) জাবেদুল ইসলাম জানান, এ বিষয়ে থানায় কোনো অভিযোগ আসেনি। লিখিত অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।
 

এই বিভাগের আরো খবর