শুক্রবার   ২৩ আগস্ট ২০১৯   ভাদ্র ৭ ১৪২৬   ২০ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

তরুণ কণ্ঠ|Torunkantho
সর্বশেষ:
২৪ ঘণ্টায় কোরবানির বর্জ্য অপসারণ দু’চার দিনের মধ্যে ওষুধ আসছে : কাদের ‘ডেঙ্গু নিয়ে কার্যকর ব্যবস্থা নিতে সরকার ব্যর্থ’ ক্ষমা চাইলেন মেয়র আতিকুল রাজধানীর ২৪ হাটে পশু বেচাকেনা শুরু ডেঙ্গু প্রতিরোধে ৫৩ কোটি টাকা বিশেষ বরাদ্ধ ঢাবির ৬৯ শিক্ষার্থী সাময়িক বহিষ্কার দেশের চতূর্থ মানব রোবট তৈরি করলো কুবি শিক্ষার্থীরা
১২৯

নতুনদের সংগ্রাম করেই উঠে আসতে হয়: সামিয়া

প্রকাশিত: ২২ জুলাই ২০১৯  

'সিলন সুপার সিঙ্গার' রিয়েলিটি শো নিয়ে কেমন দর্শক সাড়া পাচ্ছেন?

এনটিভির এ রিয়েলিটি শো নিয়ে বেশ ইতিবাচক সাড়া পাচ্ছি। আমাদের দেশে নাচ ও গানের প্রতিযোগিতাগুলোতে সাধারণত অবিবাহিত মেয়েরাই বেশি অংশ নিয়ে থাকেন। কিন্তু এই আয়োজনে অংশ নিয়েছেন শুধু বিবাহিতরা। আমাদের সমাজের অনেক বিবাহিত নারী নানা কাজের ফাঁকে সঙ্গীতচর্চা করেন। মূলত তাদের প্রতিভাকে বিকশিত করতে এই আয়োজন। এই শো করতে এসে জেনেছি বিভিন্ন পরিবার সম্পর্কে। 

প্রতিযোগীদের কতটা সম্ভাবনাময় বলে মনে হচ্ছে?

নতুনদের অনেক সংগ্রাম করে উঠে আসতে হয়। সুযোগ পেলে তারা কিছু না কিছু করে দেখাতে পারেন বলে আমি বিশ্বাস করি। কথায় আছে, 'যে রাঁধে সে চুলও বাঁধে'- এই কথা আবার সত্যি বলে প্রমাণ হয়েছে এই শোর প্রতিযোগীদের দেখে। কারণ এ প্রতিযোগিতা শুধু গৃহিণীদের নিয়ে- যারা ঘরের কাজ ছাড়াও সঙ্গীতে সমান পারদর্শী। গৃহিণীদের এত প্রতিভা আছে, তা সত্যিই আগে জানা ছিল না। 

অনেকেই অভিযোগ করে সঙ্গীতবিষয়ক অনুষ্ঠানের প্রতিযোগিতা একই রকমের হয়। এ নিয়ে আপনার বক্তব্য কী? 

আপনার এই কথা কিছুটা হলেও সত্য। আমার মনে হয়, আমরা ভিন্ন ধরনের বা ভিন্ন কিছু করতে ভয় পাই। কারণ নতুন একটি অনুষ্ঠান পরিকল্পনা থেকে শুরু করে বাস্তবায়ন পর্যন্ত প্রচুর অর্থ ব্যয় করতে হয়। তখন নির্মাতা বা কর্তৃপক্ষ চিন্তা করেন অনুষ্ঠানটি দর্শক কতটা গ্রহণ করবেন? সে কারণে হয়তো আমাদের দেশের অনেক আয়োজন একই ধরনের হয়। তবে এখন অনেকেই নতুন নতুন পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করছেন। আমাদের দেশেও অনেক মেধাবী মানুষ আছেন। ফলে আশা করছি, খুব শিগগির আমাদের এই সংকটগুলো কেটে গিয়ে নতুন ধরনের আরও অনেক আয়োজন হবে। 

উপস্থাপনায় দেখা গেলেও সাফিয়া আফরিন অনেক দিন অভিনয়ে অনুপস্থিত...

প্রথম কথা হলো, সামিয়া আফরিন কিন্তু পেশাদার অভিনেত্রী নন। এ জন্য তাকে নিয়মিত অভিনয়ে দেখা যাবে- এমন ভাবারও কারণ নেই। কিন্তু এ কথা ঠিক যে, অভিনয়ের প্রতি সবসময় আমার অন্যরকম ভালোলাগা ছিল। এখনও আছে। কিন্তু আমি যেহেতু শখের বসে অভিনয় করি। তাই আমার কাছে গল্প, চিত্রনাট্য ও চরিত্র খুব গুরুত্বপূর্ণ। আসছে কোরবানির ঈদের নাটকে অভিনয়ের জন্য অনেকেই বলেছেন। কিন্তু কোনোটিই এখনও চূড়ান্ত নয়।

রিয়েলিটি শো ছাড়া এ মুহূর্তে আর কী নিয়ে ব্যস্ত আছেন? 

উপস্থাপনার বাইরে ব্যবসায়িক ব্যস্ততা রয়েছে। তারপরও যেটুকু সময় হাতে পেয়েছি, মাঝে মাঝে বিশেষ শো নিয়ে দর্শকের সামনে হাজির হচ্ছি। 

নিজের কাজ কেমন লাগে?

সত্যি বলতে কী, প্রতিটি কাজ শেষে মনে হয় এটা আমি অন্যভাবেও করতে পারতাম। ফলে নিজের কাজ নিয়ে এখনও সন্তুষ্ট নয়।